Categories
News

আট গ্লাস পানি পানে আয়ু বৃদ্ধি বিষয়ক গবেষণা নিয়ে গণমাধ্যমে ভুল তথ্য


সম্প্রতি, “দৈনিক ৮ গ্লাস পানি পানেই বাড়বে আয়ু, বলছে গবেষণা” শীর্ষক শিরোনামে কয়েকটি গণমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। 

যা দাবি করা হচ্ছে

গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনগুলোতে দাবি করা হচ্ছে, “জানলে অবাক হবেন, দৈনিক ৮ গ্লাস পানি পান করলে শারীরিক বিভিন্ন সমস্যাসহ হার্ট অ্যাটাক, স্ট্রোক কিংবা ডিমনেশিয়ার ঝুঁকি কমবে। একই সঙ্গে আয়ু বাড়তে পারে অন্তত ১৫ বছর পর্যন্ত। এমনটিই জানাচ্ছে সাম্প্রতিক গবেষণা।” 

প্রতিবেদনগুলোতে বলা হয়েছে, “গবেষকরা বলছেন, দৈনিক ৮ গ্লাস পানি পান করার মাধ্যমে বার্ধক্যকে ধীর করা সম্ভব। ৩০ এর বেশি বয়স্ক মোট ১১ হাজার মানুষের রক্তে সোডিয়ামের মাত্রা ট্র্যাক করা হয়েছে এই গবেষণায়। এটি ইবিওমেডিসিন জার্নালে প্রকাশিত হয়।”

Screenshot source: Jagonews

গণমাধ্যমে প্রকাশিত এমন কিছু প্রতিবেদন দেখুন জাগো নিউজ, মানবকণ্ঠ, আলোকিত বাংলাদেশ, দৈনিক গণমুক্তি

দৈনিক গণমুক্তির প্রিন্ট সংস্করণেও গত ৯ জানুয়ারি উক্ত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। দেখুন এখানে (আর্কাইভ)।

Screenshot source: Facebook

ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে।
পোস্টগুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে।

Screenshot source: Facebook

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, গবেষণায় এসেছে দৈনিক ৮ গ্লাস পানি পানে আয়ু বাড়বে এবং গবেষণাটি ত্রিশোর্ধ্ব বয়সীদের নিয়ে করা হয়েছে শীর্ষক তথ্যগুলো সঠিক নয় বরং আলোচিত গবেষণাটিতে দৈনিক পানি পানের পরিমাণের বিষয়ে কোনো তথ্য দেওয়া হয়নি। তাছাড়া, প্রাপ্ত বয়স্কদের ৩০ বছর সময়কালের স্বাস্থ্য উপাত্তের ভিত্তিতে উক্ত গবেষণাটি করা হয়েছে।

অনুসন্ধান যেভাবে

ছড়িয়ে পড়া আলোচিত তথ্যগুলো অনলাইন সংবাদমাধ্যম জাগোনিউজের প্রতিবেদনে উল্লেখ পাওয়া যায়। ৮ জানুয়ারি প্রকাশিত জাগো নিউজের উক্ত প্রতিবেদনে সূত্র হিসেবে ব্রিটেনের সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের নাম উল্লেখ রয়েছে।

Screenshot source: Jagonews

পরবর্তীতে কিওয়ার্ড সার্চ করে গত ০২ জানুয়ারি উক্ত বিষয়ে “Secret to anti-aging: Drinking eight glasses of water every day can prolong your life for up to 15 YEARS and slash the risk of heart attacks, strokes and dementia, study suggests” শিরোনামে প্রকাশিত ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনটি খুঁজে পাওয়া যায়। 

Screenshot source: Daily Mail

ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনের শিরোনামে “দৈনিক ৮ গ্লাস পানি পান আপনার আয়ু ১৫ বছর বৃদ্ধি করতে পারে।” শীর্ষক তথ্য উল্লেখ করা হয়েছে। 

মূল প্রতিবেদনের শুরুতে লেখা রয়েছে, “গবেষকরা উপকার ভোগের জন্য দিনে সুপারিশকৃত আট গ্লাস পান করার জন্য মানুষকে উৎসাহিত করছেন, এটাও বলেছেন যে এটি ‘বার্ধক্যকে ধীর করে’ বলে মনে হচ্ছে। ১১,০০০-এরও বেশি ৩০-উর্ধ্বের উপর করা গবেষণায় রক্তে সোডিয়ামের মাত্রা ট্র্যাক করা হয়েছে, যা আপনি কম তরল পান করলে বৃদ্ধি পায়।”

Screenshot source: Daily Mail

ডেইলি মেইল তাদের প্রতিবেদনে গবেষক দলের প্রধান ড. নাটালিয়া ডিমিটরিয়াভার (Dr. Natalia Dmitrieva) বক্তব্য উল্লেখ করেছে। তিনি বলেছেন, ফলাফলগুলো পরামর্শ দেয় যে সঠিক হাইড্রেশন বার্ধক্যকে কমিয়ে দিতে পারে এবং রোগমুক্ত জীবনকে দীর্ঘায়িত করতে পারে।”

ডেইলি মেইল লিখেছে, “বার্ধক্যের প্রভাব ধীরগতিতে আনতে ঠিক কী পরিমাণ পানি প্রয়োজন তা গবেষণায় নির্দিষ্ট করে উল্লেখ করা হয়নি। তবে যুক্তরাষ্ট্রের অফিশিয়াল হেলথ গাইডলাইনে বলা হয়েছে, নারী-পুরুষদেরকে দৈনিক ৩ লিটার পর্যন্ত পানি পান করা উচিত- যা ৮ গ্লাসের সমতুল্য।”

Screenshot source: Daily Mail

অর্থাৎ, ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনের শিরোনামের সাথে মূল প্রতিবেদনের লেখার অসঙ্গতি রয়েছে। শিরোনামে ৮ গ্লাস পানি পানে আয়ু বৃদ্ধির বিষয়ে গবেষণার সূত্র উল্লেখ থাকলেও মূল প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কী পরিমাণ পানি পান করতে হবে সে বিষয়ে গবেষণায় উল্লেখ নেই। 

কী বলা হয়েছে গবেষণায়?  

আলোচিত গবেষণা প্রবন্ধটি গত ০২ জানুয়ারি ‘eBioMedicine’ জার্নালে প্রকাশিত হয়। 

গবেষণা প্রবন্ধের কোথাও আট গ্লাস পানি পানের বিষয়ে কোনো তথ্য দেওয়া হয়নি বরং লেখা রয়েছে, “ফলাফলগুলো অনুমানের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ যে হাইড্রেশন হ্রাস বার্ধক্যকে ত্বরান্বিত করতে পারে। যাইহোক, এই বিষয়টি প্রমাণ করার জন্য ইন্টারভেনশনাল ট্রায়াল প্রয়োজন।”

Screenshot source: eBioMedicine

অর্থাৎ, গবেষণায় আয়ু বাড়াতে নির্দিষ্ট কোনো পরিমাণ পানি পানের বিষয়ে উল্লেখ করা হয়নি।

পরবর্তীতে গত ০৩ জানুয়ারি গবেষণাটির বিষয়ে এটির অর্থায়নকারী প্রতিষ্ঠান যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি সংস্থা ন্যাশনাল ইনস্টিটিউটস অব হেলথ (NIH) এর প্রকাশিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “৩০ বছর সময়কাল ধরে ১১ হাজার ২৫৫ জন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তিদের স্বাস্থ্য উপাত্ত (health data) সংগ্রহ করে গবেষকরা সেরাম সোডিয়ামের মাত্রা যা তরল কম গ্রহণ করলে বাড়ে এবং স্বাস্থ্যের বিভিন্ন সূচকের মধ্যে যোগসূত্র বিশ্লেষণ করেছেন”।

Screenshot source: NIH

অর্থাৎ, গণমাধ্যমে গবেষণাটি ৩০ এর বেশি বয়স্কদের উপর করা হয়েছে বলে যে দাবি করা হচ্ছে তা সঠিক নয়। প্রকৃতপক্ষে, প্রাপ্তবয়স্কদের ৩০ বছর সময়কালের স্বাস্থ্য উপাত্ত সংগ্রহ করে গবেষণাটি করা হয়েছে। 

এ বিষয়ে জানতে গবেষক দলের প্রধান ড. নাটালিয়া ডিমিটরিয়াভার সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করে রিউমর স্ক্যানার টিম। তবে তিনি ২৬ জানুয়ারি পর্যন্ত ছুটিতে থাকায় তাৎক্ষণিকভাবে তার মন্তব্য পাওয়া যায়নি। 

মূলত, গত ০২ জানুয়ারি ‘eBioMedicine’ জার্নালে পানি পানের সাথে বার্ধক্যের সম্পর্কের বিষয়ে একটি গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়। এ বিষয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে গবেষণাটির বরাতে বলা হয়, দৈনিক ৮ গ্লাস পানি পানেই অন্তত ১৫ বছর পর্যন্ত আয়ু বাড়বে এবং ৩০ এর বেশি বয়স্কদের উপর উক্ত গবেষণা করা হয়েছে। তবে অনুসন্ধানে দেখা যায়, উক্ত গবেষণায় আয়ু বাড়াতে ঠিক কী পরিমাণ পানি পান করতে হবে সে বিষয়ে উল্লেখ করা হয়নি। তাছাড়া শুধু ৩০ বছরের বেশি বয়স্কদের উপর নয় বরং ১১ হাজার ২৫৫ জন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির ৩০ বছর সময়কাল ধরে স্বাস্থ্য উপাত্ত সংগ্রহ করে উক্ত গবেষণাটি করা হয়।

প্রসঙ্গত, দৈনিক আট গ্লাস পানি পান সকলের জন্য প্রযোজ্য কিনা সে বিষয়ে ইতোমধ্যেই বিস্তারিত ফ্যাক্টফাইল প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার। 

সুতরাং, আয়ু বাড়াতে গবেষণার বরাতে পানি পান বিষয়ে কিছু তথ্য গণমাধ্যমে প্রচার করা হচ্ছে ; যা বিভ্রান্তিকর। 

তথ্যসূত্র



Source link