Categories
ফ্রিল্যান্সিং

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কাজ পাই না। কারণ কি?


ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কাজ পাই না। কারণ কি?

আমরা অনেকে বলে থাকি, ভাই আমি ভালো কাজ জানি কিন্তু কাজ পাই না। এই নিয়ে আজকের এই ব্লগটি। আশা করি ব্লগটি শেষ পর্যন্ত আপনারা পড়বেন।

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কাজ পাই না। কারণ কি?

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কাজ না পাওয়ার কারণ কি?

খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় যে, আমরা কেন কাজ পাই না? কাজ না পাওয়ার পিছনে সবচেয়ে বড় কারণ হচ্ছে আমরা প্রপার কাজটা জানিনা। আপনি হয়তো গ্রাফিক ডিজাইন নিয়ে কাজ করছেন, গ্রাফিক ডিজাইনের কোন ক্যাটাগরি নিয়ে কাজ করছেন, সে ক্যাটাগরি তে এখন পর্যন্ত হয়তোবা আপনি যথেষ্ঠ দক্ষ না। এইজন্য কাজ পাচ্ছেন না।

আরও জানুনঃ ফ্রিল্যান্সিং এ ব্যর্থ হওয়ার মূল কারণ ও প্রতিকার

দ্বিতীয় নাম্বারে যে বিষয় সেটি হচ্ছে আপনার ক্লাইন্ট কমিউনিকেশন খুব বেশি ভাল না। আপনি হয়তো বা ক্লাইন্টের কোন একটি মেসেজ বুঝতে পারছেন না। আপনি হয়তো বা যে একটি মেসেজ প্রোফাইলে ক্লায়েন্ট কে দিচ্ছেন সেই মেসেজটুকু হয়তো আপনি বোঝাতে পারছেন না। এরকম একটা বিষয় কাজ করে।

তৃতীয় নাম্বার যে বিষয়টি সেটি হচ্ছে আপনি হয়তো বা মার্কেটপ্লেসে এক্টিভ না। আপনি যদি  মার্কেটপ্লেসে কাজ করে থাকেন তাহলে আপনি অবশ্যই এক্টিভ না। এই মোটামুটি তিনটি কারণে আমরা সাধারণত কাজ পায় না।

আমি প্রথম বিষয়টি নিয়ে আবারো কথা বলি। আমাদের হয়তো স্কিল প্রপার ডেভেলপ না। আমরা প্রপারলি কাজে দক্ষ না। এরকম একটি বিষয় আমাদের মধ্যে কাজ করে। আমাদের কাছে অনেক সময় মনে হয় যে, আমি হয়তো বা এটার উপর অনেক দক্ষ, ভালো কাজ জানি। কিন্তু বিষয়টা এমনটাও হতে পারে যে, আমি যে মার্কেটপ্লেতে কাজ করতে যাচ্ছি সে মার্কেটপ্লেসে যে পরিমাণ যোগ্যতা প্রয়োজন সেই অনুযায়ী আমার হয়তো যোগ্যতা আমি অর্জন করতে পারিনি। 

আমি কিভাবে বুঝবো যে, আমি এখনও যোগ্যতা অর্জন করতে পারিনি। এই জন্য আপনাকে আগে  মার্কেটপ্লেস নিয়ে রিচার্জ করতে হবে। এখানে কি ধরনের কাজ গুলোকে দেওয়া হয়, কোন ধরনের এক্সপার্ট ফ্রিলেনস্যাররা এখানে কাজ করছে।  এ বিষয়টুকু নিয়ে আপনি একটু রিসার্চ করলে আপনি বুঝতে পারবেন আপনাকে কতটুকু দক্ষ হয়ে এ মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে হবে। পাশাপাশি আপনার আশেপাশে অথবা যারা কাজ করে ইতিমধ্যে, ইতিমধ্যে করেছে তাদের সাথে যোগাযোগ করে দেখতে পারেন। 

তারা কতটুকু দক্ষ হয়ে কাজ করছে অথবা আপনার কাজগুলো দেখাতে পারেন যে, দেখেন এ কাজটার উপর আমি দক্ষতা অর্জন করেছি। আমি এটার উপর এক্সপার্ট আছি। এই কাজগুলো দিয়ে আমি মার্কেটপ্লেসে জয়েন করতে পারবো কিনা। যদি সে বলে হ্যাঁ, সে যদি গ্রীন সিগনাল দেয় যে, আপনি কাজ করতে পারবেন, আপনি মার্কেটপ্লেসে একটি প্রোফাইল খুলেন, এভাবে করে আপনি কাজ করতে পারবেন। নিঃসন্দেহে তখন আপনি মার্কেটপ্লেসে যেতে পারেন।

দ্বিতীয় নাম্বার যে বিষয়টি সেটি হচ্ছে আমরা মার্কেটপ্লেসে অ্যাক্টিভ না। মার্কেটে কাজ করতে গেলে আপনাদেরকে একটিভ হতে হবে। একটিভ মার্কেটপ্লেসে অবশ্যই একটিভ থেকে একটি জব দেখে শুনে বুঝে আপনাকে বিট করতে হবে। তারপর আপনি ভালো কিছু করতে পারবেন এবং ওই কাজটি আপনি পাওয়ার অপরচুনিটি তখনই থাকবে যখন আপনি এটিতে সময় বেশি দিবেন। 

আপনি একটি জবে বিট করলেন, বিট করার পর ক্লাইন্ট আপনাকে সাথে সাথে মেসেজ দিয়েছে অথবা একঘন্টা পরে মেসেজ দিয়েছে অথচ পিসির সামনে আপনি নেই অথবা আপনি অন্য কোথাও আছেন কিন্তু আপনি এই ক্লাইন্টকে রেস্পন্স করতে পারছেন না প্রপারলি। টাইম টু টাইম রেস্পন্স না করার কারণে আপনার কাছ থেকে ক্লাইন্ট চলে যাচ্ছে। যদিও আপনি ওইটার উপর এক্সপার্ট হয়ে গেছেন। তারপরেও ওই কাজটার ওপর এক্সপার্ট থাকার পরও ক্লাইন্ট কিন্তু আপনার কাছ থেকে হাতছাড়া হয়ে যাচ্ছে।

তৃতীয় নাম্বার যে বিষয়টি সেটি হচ্ছে আমরা দেখেছি, কমিউনিকেশন স্কিল আমাদের একেবারে দুর্বল অনেক সময় । অনেক সময় ফ্রিল্যান্সারদের দেখেছি ক্লায়েন্টদের সাথে টোটালি কথা বলতে পারে না। আবার ক্লায়েন্টদের যে মেসেজগুলো রয়েছে প্রোপারলি বোঝেনা। অথবা সে কিভাবে বোঝাচ্ছে সেটা হয়তো ক্লায়েন্ট বুঝতেছেনা। এই যে, কমিউনিকেশন গ্যাপ টা রয়েছে, এই গ্যাপ টা থেকে আমাদেরকে বেরিয়ে আসতে হবে। 

আমাদেরকে এক্সপার্ট হতে হবে, ইংলিশে আমাদেরকে দক্ষ হতে হবে। এজন্য আপনি সব সময় চেষ্টা করতে পারেন। প্রতিদিন চেষ্টা করতে পারেন।  আমি কিভাবে এগিয়ে যেতে পারি, আমি নিজের জায়গা থেকে আধা ঘন্টা, এক ঘন্টা সময় দিয়ে ক্লায়েন্ট কমিউনিকেশনের জন্য কোন ধরনের লিস্টগুলো দরকার আছে, সেগুলো নিয়ে আপনি প্র্যাকটিস করতে পারেন। কিছুদিনের মধ্যে আপনি এক্সপার্ট হয়ে যাবেন । কিছু ক্লায়েন্টের সাথে আপনি কনভারসেশন করলেন তাহলে আপনি বুঝে যাবেন কোন ক্লায়েন্ট কিভাবে কথা বলে, কোন ক্লায়েন্টের সাথে কিভাবে টেক্সট করতে হয়, কোন ক্লায়েন্টের সাথে কিভাবে জুম মিটিং করতে হয় অভারল বিষয়গুলো আপনি জেনে যাবেন।



Source link