Categories
Info

নিরপেক্ষ ও সাপেক্ষ বচনের মধ্যে পার্থক্য


নিরপেক্ষ বচন (Categorical proposition):

যে প্রকার বচনের বিধেয় পদটি কোনো শর্তের উপর নির্ভর না করে, উদ্দেশ্য পদ সম্পর্কে কোনো কিছু স্বীকার বা অস্বীকার করে, তাকে নিরপেক্ষ বচন বলে। অর্থাৎ নিরপেক্ষ বচনে কারো সম্বন্ধে নিঃশর্তভাবে কোন কিছু বলা হয়। এই ক্ষেত্রে যার সম্বন্ধে বলা হয় এবং যা বলা হয় দুটিই হল বিষয়। অর্থাৎ নিরপেক্ষ বচনে দুটি মাত্র বিষয় থাকে। এই বিষয় দুটির প্রত্যেকটিই শব্দ হতে পারে, আবার শব্দ সমষ্টি হতে পারে। এই শব্দ বা শব্দ-সমষ্টিকে পদ বলে। নিরপেক্ষ বচনের বিষয় হিসাবে ব্যবহৃত হতে পারে এমন শব্দ বা শব্দ-সমষ্টিকে পদ বলে।

নিরপেক্ষ বচনের এই পদ দুটির একটির সাথে অন্যদির সম্বন্ধ স্বীকৃতির হতে পারে। যেমন- ফুল হয় লাল। এখানে ফুলকে লাল বলে স্বীকার করা হয়েছে। আবার ফুল নয় লাল। এখানে ফুলকে লাল বলে অস্বীকার করা হচ্ছে। এক কথায় বলা যায়, যে বাক্যের মাধ্যমে দুটি পদের মধ্যে স্বরূপ বা বিরূপ সম্বন্ধ ঘোষণা করা হয় তাকে নিরপেক্ষ বচন বলে।

সাপেক্ষ বচন (Non-categorical proposition):

যে বচনের উদ্দেশ্য ও বিধেয়ের সম্বন্ধে অন্য কোন শর্তের উপর নির্ভরশীল তাকে সাপেক্ষ বচন বলে। যেমন- যদি মেঘ করে তাহলে বৃষ্টি হবে। এখানে উদ্দেশ্য হল মেঘ করা এবং বিধেয় হল বৃষ্টি হওয়া। উভয়ের সম্বন্ধ পূর্ব কোন শর্তের উপর নির্ভরশীল। এজন্য উক্ত বচনটি সাপেক্ষ। কোন শর্ত ছাড়া উদ্দেশ্য ও বিধেয়ের সম্বন্ধটিকে তাই এখানে কোনোভাবেই ব্যাখ্যা করা যায় না।

নিরপেক্ষ ও সাপেক্ষ বচনের মধ্যে পার্থক্যঃ

নিরপেক্ষ ও সাপেক্ষ বচনের মধ্যে উদ্দেশ্য ও বিধেয় থাকলেও, এদের মধ্যে বৈশিষ্ট্যগত পার্থক্য রয়েছে। নিরপেক্ষ ও সাপেক্ষ বচনের মধ্যে পার্থক্য নিম্নরূপ-

১। যে বাক্যের মাধ্যমে দুটি পদের মধ্যে স্বরূপ বা বিরূপ সম্বন্ধ ঘোষণা করা হয় তাকে নিরপেক্ষ বচন বলে। অন্যদিকে, যে বচনের উদ্দেশ্য ও বিধেয়ের সম্বন্ধে অন্য কোন শর্তের উপর নির্ভরশীল তাকে সাপেক্ষ বচন বলে।

২। নিরপেক্ষ বচনের উদ্দেশ্য ও বিধেয় পদের সম্বন্ধ কোনো শর্ত নির্ভর নয়। অন্যদিকে, সাপেক্ষ বচন হলো শর্তযুক্ত বচন।

৩। নিরপেক্ষ বচন হলো মৌলিক বচন। অন্যদিকে, সাপেক্ষ বচন হলো যৌগিক বচন।

৪। নিরপেক্ষ বচন কখনোই সাপেক্ষ বচন নির্ভর নয়। অন্যদিকে, সাপেক্ষ বচন সর্বদাই নিরপেক্ষ বচন নির্ভর।

৫। নিরপেক্ষ বচনে গুণ ও পরিমাণ স্পষ্টভাবে উল্লেখ থাকে। অন্যদিকে, সাপেক্ষ বচনে স্পষ্টভাবে উল্লেখ থাকে না।

৬। নিরপেক্ষ বচনের আকার হলো- s হয় p অথবা s নয় p । অন্যদিকে, সাপেক্ষ বচনের আকার হলো- যদি p তবে q আর p অথবা q।





Source link