Categories
স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা

ঘন কুয়াশায় বীজতলা তৈরিতে বিপাকে রংপুরের কৃষকরা


ঘন কুয়াশায় বীজতলা তৈরিতে বিপাকে রংপুরের কৃষকরা

ঘন কুয়াশা ও তিব্র শীতে বোরো বীজতলা নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছেন রংপুর অঞ্চলের কৃষকরা। কুয়াশা এবং শীত চারা রোপণের জন্য হুমকি হয়ে পরেছে। বৈরী আবহাওয়ায় ঠিক না হওয়া পর্যন্ত কৃষক চারা তৈরিতে অনেক সমস্যার মুখে পরতে হচ্ছে। অনেকে পলিথিন দিয়ে বীজ তলা ঢেকে তা রক্ষা করার চেষ্টা করছেন।

জানা যায়, রংপুর অঞ্চলের কৃষকরা চারা রোপণ ও বীজ তলা তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। রবি ফসল হিসাবে চাষ করা ফসল উত্তলনের পর ওই জমিতে আবাদের পস্তুতি নিচ্ছেন। গত এক সপ্তাহ থেকে রংপুর অঞ্চলের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৭ থেকে ১০ ডিগ্রী সেলসিয়াসের মধ্যে উঠানামা করছে। সেজন্য বীজ তলা রক্ষার জন্য সকল কৃষক ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। কেউ কেউ বীজ তলা পানি দিয়ে ডুবিয়ে রাখছেন, আবার কেউ পলিথিন দিয়ে ঢেকে রাখছেন। কেউ আবার ঔষধ ছিটিয়ে চারা রক্ষার চেষ্টা করছেন।

কৃষক আবুল হোসেনসহ বলেন, এই ঘন কুয়াশার কারনে আমরা সঠিক সময়ে চারা তৈরি করতে পাচ্ছিনা যদি ঠিক সময়ে চারা রোপণ করতে না পারি খরচ বেড়ে যাবে দুইগুন । কারণ বীজ তলার বয়স ৪০ থেকে ৪৫ দিন হলে তা জমিতে রোপন করা হয়। এক বিঘা জমির জন্য চারা কিনতে দাম পড়ে ৬০০ থেকে ৭০০ টাকা। যদি বীজতলা নষ্ট হয়ে যায় এবং সঠিক সময়ে বীজতলা তৈরি করা না যেতে পারে দাম আরও বেড়ে যাবে। তাই জমিতে রোপণ না করা পর্যন্ত বীজতলায় চারার পরিচর্যা মনোযোগ দিচ্ছি।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ওবায়দুর রহমান বলেন, ঘন কুয়াশা ও তিব্র শীতে উত্তরঞ্চলে বোরো চাষে বাদা গ্রস্ত হচ্ছে। সেটি মাথায় রেখে আমরা মাঠ পর্যায়ে কৃষকদের বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ দিয়ে আসছি।



Source link