Categories
Tips and Tricks

অ্যান্ড্রয়েড ফোনে কম্পিউটারের মত মাল্টি-টাস্কিং করার উপায়


বর্তমানে স্মার্টফোনগুলোর মধ্যে সবথেকে বেশি ব্যবহারকারী অ্যান্ড্রয়েড ফোনের। অ্যান্ড্রয়েড ফোনের জন্য বেশকিছু লুকানো পদ্ধতি রয়েছে যা ব্যবহার করে আপনার ফোন ব্যবহারের অভিজ্ঞতা আরো সমৃদ্ধ হতে পারে। এই পোস্টে এরকমই একটি বিষয় নিয়ে কথা বলব আমরা। আমাদের অনেকেরই জানা নেই যে আমাদের স্মার্টফোন বা ট্যাবলেট ডিভাইস ডেস্কটপ কম্পিউটারের মতই মাল্টিটাস্কিং করতে পারে। এমনকি মাল্টিটাস্কিং করার জন্য অ্যান্ড্রয়েড ৭ ভার্সন হতে গুগল স্প্লিট স্ক্রিন বা পিকচার ইন পিকচারের মতো বিভিন্ন ফিচারও নিয়ে এসেছে। এই বিল্ট ইন ফিচারের মাধ্যমে দুইটি ভিন্ন অ্যাপে আপনি একইসাথে কাজ করতে পারবেন স্প্লিট স্ক্রিন ইন্টারফেস ব্যবহার করে।

অ্যান্ড্রয়েডের ফ্রিফর্ম মোড ব্যবহার করে আপনি পিসির মতোই একটি ছোট স্ক্রিন উইন্ডো ওপেন করতে পারেন যা নিজের ইচ্ছামতো নড়াতে পারবেন। এই উইন্ডো মাল্টিটাস্কিংকে সহজ করে দিলেও বিভিন্ন ম্যানুফ্যাকচারার তাদের ওএস এ এই ফাংশনকে অনেকটাই সীমাবদ্ধ করে রাখে ডিভাইসের ধরণ অনুযায়ী।

ফলে কিছু অ্যান্ড্রয়েড ফোনে মাল্টি-উইন্ডো ফিচার প্রথম থেকেই দেয়া থাকলেও অনেক ফোনেই এই ফিচার এনাবল করা থাকে না। তাই কিছু পদ্ধতি ব্যবহার করে মাল্টি-টাস্কিং ফিচার আপনি চালু করে নিতে পারেন সহজেই। তবে কিছু কিছু অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসও আছে যা মাল্টি-উইন্ডো ফিচার একদমই সাপোর্ট করে না।

অ্যান্ড্রয়েডের বিল্ট-ইন স্প্লিট-স্ক্রিন মোড ব্যবহার

এই ফিচার ব্যবহার করে আপনি একইসাথে দুটি অ্যাপ পাশাপাশি রেখে ব্যবহার করতে পারবেন। কিন্তু এই ফিচারের মাধ্যমে শুধু দুটি জিনিসকেই এভাবে পাশাপাশি বা উপরে নিচে রাখা সম্ভব। কিছু অ্যাপের জন্য এই ফিচারটি কাজও করবে না। এই ফিচারটি ঠিকভাবে কাজ করতে অ্যান্ড্রয়েড ৯ বা তার পরের যে কোন ভার্সনের প্রয়োজন হবে। নিচের নির্দেশনা অনুযায়ী এই ফিচার সহজেই ব্যবহার করতে পারবেনঃ

  • প্রথমে আপনাকে ভার্চুয়াল ওভারভিউ বাটনে ট্যাপ করতে হবে যার আইকন বর্গের মতো দেখতে এবং সাধারণত স্ক্রিনের নিচে হোম বাটনের ডানপাশে থাকে। এছাড়া স্ক্রিনের নিচ থেকে উপরের দিকে সোয়াইপ করলেও এই ওভারভিউ দেখতে পাবেন।
  • সেখানে আপনার রিসেন্ট ব্যবহার করা সব অ্যাপের একটি তালিকা চলে আসবে। যে অ্যাপটি আপনি স্প্লিট-স্ক্রিনে ব্যবহার করতে চান উপরে সেই অ্যাপের আইকনে প্রেস করে হোল্ড করুন।
  • একটা সাব-মেনু সামনে আসবে যেখান থেকে আপনাকে ‘Split screen’ অপশনটি সিলেক্ট করতে হবে।
split app option
  • এবার আপনাকে আরেকটি অ্যাপ সিলেক্ট করে দিতে হবে স্প্লিট-স্ক্রিনে ব্যবহারের জন্য।
splitted apps
  • দ্বিতীয় স্ক্রিনটি সরিয়ে ফেলতে চাইলে দুই স্ক্রিনের মাঝের বারটি টেনে স্ক্রিনের কোণায় নিয়ে আসুন।

ভিডিওর জন্য পিকচার ইন পিকচার ফিচার ব্যবহার

যখন আপনি আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে কোনো ভিডিও ফুল স্ক্রিনে দেখতে থাকবেন তখন অন্য কোনো অ্যাপে প্রবেশ করলে একা একাই ভিডিওটি পিকচার ইন পিকচার মোডে চলে যাবে। যেসব অ্যাপ এই ফিচার সাপোর্ট করে সেসব অ্যাপে এই ফিচারটি সাধারণত ডিফল্টভাবেই অন করা থাকে। যদি কোনো সাপোর্টেড অ্যাপের জন্য এটি এনাবল করা না থাকে তবে এনাবল করে নিতে:

  • অ্যান্ড্রয়েড ফোনের সেটিংস ওপেন করুন।
  • ‘Apps & notifications’ সিলেক্ট করুন।
  • যে অ্যাপের জন্য এই ফিচারটি অন করতে চান লিস্ট থেকে সেটি সিলেক্ট করুন।
  • নিচে স্ক্রল করে ‘Advanced’ সেকশনে চলে যান বা এটি লুকানো থাকলে ‘Advanced’ এ ট্যাপ করুন।
  • ‘Picture-in-picture’ অপশনে ট্যাপ করুন।
picture in picture android option
  • ‘Allow Picture-in-picture’ এনাবল করে দিন টগলে ট্যাপ করে।
  • এখন ওই অ্যাপে কোনো ভিডিও প্লে করে ফুল স্ক্রিন মোডে চলে যান।
  • এবার যদি সব ঠিকঠাক থাকে তবে হোম স্ক্রিনে চলে গেলে বা অন্য কোনো অ্যাপে গেলেও ভিডিওটি একটি ছোট উইন্ডোতে চলতে থাকবে।
  • ড্র্যাগ করে ভিডিওটি আপনার পছন্দমত যে কোনো পজিশনে নিয়ে নিতে পারবেন।
  • এই উইন্ডোর মাঝে একটি আইকন থাকবে যেখানে ট্যাপ করলে পুনরায় ফুল স্ক্রিনে চলে যেতে পারবেন।

অ্যান্ড্রয়েডে কীভাবে দুই স্ক্রিনের বেশি মাল্টি-টাস্ক করবেন

স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি নোট সিরিজে ডিফল্টভাবে দুইয়ের বেশি স্ক্রিনে মাল্টি-টাস্ক করার ফিচার রয়েছে। যদি আপনি অ্যান্ড্রয়েডের ডিফল্ট দুই স্ক্রিনের মাল্টি-টাস্ক করার সীমাবদ্ধতা হতে বের হয়ে তেমন কিছু চান তবে আপনি থার্ড পার্টি অ্যাপ ব্যবহার করে যে কোনো অ্যান্ড্রয়েডে সেই সুবিধা পেতে পারেন। তবে এই অ্যাপের পারফরমেন্স নির্ভর করবে আপনার ডিভাইসের প্রসেসর ও র‍্যামের উপর। এবং এই অ্যাপ ব্যবহারের আগে আপনাকে ফোনের এন্ড্রয়েড ডেভেলপার অপশন এনাবল করে নিতে হবে।

  • প্রথমে আপনার ফোনের সেটিংসে যান।
  • লিস্ট হতে ‘System’ সিলেক্ট করে ‘About Phone’ এ ট্যাপ করুন।
  • এবার ‘Build Number’ লেখাটি খুঁজে নিন এবং এটির উপর ট্যাপ করতে থাকুন যতক্ষণ না আপনার ফোনের নিচে লেখা উঠবে ‘You are now a developer’
  • এবার সিস্টেম পেজে ফিরে যান এবং ‘Developer options’ সিলেক্ট করুন।
  • ডেভেলপার মোড এনাবল করে নিন টগলে ট্যাপ করে।
  • এবার স্ক্রল করে ‘Enable freeform windows’ লেখাটি খুঁজে নিন এবং এটার টগল এনাবল করে দিন। একইভাবে ‘Force activities to be resizable’ অপশনটি খুঁজে সেটিও একইভাবে এনাবল করে দিন।
android developer options

এবার আপনাকে থার্ড পার্টি একটি অ্যাপ ডাউনলোড করে ইনস্টল করে নিতে হবে। গুগল প্লে থেকে টাস্কবার নামের এই অ্যাপটি ইনস্টল করে নিন এই লিংক থেকে।

  • অ্যাপটি ওপেন করে উপর থেকে টগলটি অন করে দিন।
taskbar freeform app
  • এবার যে যে পারমিশন চাইবে সেগুলো দিয়ে দিন।
  • ‘Freeform mode’ অপশনে ট্যাপ করুন।
  • এখানে ‘Freeform window support’ এবং ‘Always open apps in new windows’ অপশন দুটিতে টিক দিয়ে দিন।
  • এখন আপনি যখনই ফোনের টাস্কবার ওভারলে বাটন থেকে কোনো অ্যাপ ওপেন করবেন তা একটি আলাদা উইন্ডোতে ওপেন হবে।
  • এবার অ্যাপ উইন্ডো ড্রাগ করে নিজের ইচ্ছামতো পজিশনে রাখতে পারবেন। কর্নারগুলো টেনে উইন্ডো রিসাইজও করতে পারেন সহজেই।
  • এবার হোম বাটন চেপে সব উইন্ডো একবারে ক্লোজ করে দিতে পারেন বা প্রতিটি উইন্ডোর কর্নারে ‘X’ বাটন চাপ দিয়ে আলাদাভাবে উইন্ডো ক্লোজ করে দিতে পারেন। 

আপনি কি মাল্টিটাস্কিং পছন্দ করেন? আপনার মতামত কমেন্টে জানান!

Join 7,747 other subscribers





Source link