Categories
News

আধার কার্ড ব্যবহার করার সময় এই 6টি জিনিস মাথায় রাখুন, না হলে বড় ক্ষতি হতে পারে


আশি হোক বা আশি, প্রত্যেক ভারতীয়ের কাছে এখন নাগরিকত্বের পরিচয়পত্র হিসেবে আধার কার্ড রয়েছে। বিভিন্ন সরকারি, বেসরকারি চাকরি বা দৈনন্দিন জীবনের অন্য যে কোনো প্রয়োজনের জন্যই হোক – অনন্য 12 সংখ্যার আইডি সহ আধার কার্ড সব ক্ষেত্রেই কার্যকর। কিন্তু সাম্প্রতিক আধার কার্ডধারীরা যদি কিছু বিষয়ে খেয়াল না রাখেন, তাহলে গুরুত্বপূর্ণ নথি নিজেই ক্ষতির কারণ হয়ে উঠতে পারে। হ্যাঁ, আমি ঠিক! আসলে, গত কয়েকদিন ধরেই আধার কার্ডের অপব্যবহারের খবর আসছে। এমন পরিস্থিতিতে আধার কর্তৃপক্ষ অর্থাৎ UIDAI সম্প্রতি দেশের সাধারণ মানুষকে নিরাপদ রাখতে কিছু টিপস শেয়ার করেছে। এই দৌড়াদৌড়ির জীবনে আপনি যদি কোনো সমস্যায় পড়তে না চান, তাহলে অবশ্যই অনুসরণ করুন এই টিপসগুলো।

আধার সংক্রান্ত ক্ষতি এড়াতে এই বিষয়গুলি মাথায় রাখুন

1. আধার ওটিপি কখনই কারও সাথে শেয়ার করা উচিত নয়। প্রয়োজনে আপনি আপনার আধারের সাথে নিবন্ধিত মোবাইল নম্বর স্ক্যান করে প্রয়োজনীয় তথ্য ম্যানুয়ালি পরীক্ষা করতে পারেন।

2. আপনি যদি অন্য কারো কম্পিউটার বা ল্যাপটপ থেকে ই-আধার ডাউনলোড করে থাকেন তবে ব্যবহারের পরে সেই ডিভাইস থেকে ফাইলটি মুছে দিন। নোট করুন যে আধার কর্তৃপক্ষ অর্থাৎ আধার UIDAI-এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট বা পোর্টাল থেকে ডাউনলোড করা যেতে পারে।

3. আপনি যদি বেশিরভাগ সময় আধার ব্যবহার করেন তবে অবশ্যই আধার প্রামাণিক ইতিহাস চেক করুন। ভারত সরকার প্রতি 6 মাসে 50টি আধার ব্যবহারের তথ্য প্রদান করে, যার মধ্যে আধার ব্যবহারের তারিখ এবং সময় অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এই তথ্যের মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন আপনার আধারের অপব্যবহার হয়েছে কিনা।

4. আধারের অপব্যবহার রোধ করতে ব্যবহারকারীদের বায়োমেট্রিক্স লক করে রাখা উচিত। সেক্ষেত্রে আধার লক বা আনলক করতে আপনার 16 ডিজিটের ভিআইডি হাতে রাখুন।

5. আপনি যদি কোথাও আধার নম্বর দেখাতে না চান তবে আপনি তার পরিবর্তে ভিআইডি বা মাস্কড আধার ব্যবহার করতে পারেন। UIDAI এর মতে, এটি একটি সম্পূর্ণ আইনি প্রক্রিয়া যা আপনি চাইলে অপব্যবহার এড়াতে পারেন।

6. সর্বদা আপনার সর্বশেষ মোবাইল নম্বর আধারের সাথে আপডেট রাখুন। তাই আপনার যদি কোনও সন্দেহ থাকে যে আপনার নিজের মোবাইল নম্বর বা ইমেল আইডি আধারের সাথে লিঙ্ক করা নেই, আপনি লিঙ্কটি ব্যবহার করে সন্দেহ দূর করতে পারেন।





Source link