Categories
টিপস

ট্যুর থেকে ফিরে সানট্যান রিমুভ করুন মাত্র এক সপ্তাহেই!


ছুটিতে কক্সবাজারে তো ভালোই বেড়ালাম, কিন্তু আসার পর দেখি ফেইস একদম কালো হয়ে গেছে!’ ‘এত রোদ বাইরে, এই কড়া রোদে ঘোরাঘুরি করে স্কিন কয়েক শেইড ডার্ক হয়ে গেলো’ এই ধরনের অভিযোগ খুবই কমন। ঘুরতে গেলে রোদের ভয় করলে কি চলবে, বলুন তো? সান প্রোটেকশনের জন্য সানস্ক্রিন অ্যাপ্লাই করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সানস্ক্রিন স্কিপ করলে বা টাইম টু টাইম রিঅ্যাপ্লাই না করলে স্কিনে তো সানট্যান পড়বেই! যাই হোক না কেন, ট্যুর থেকে ফিরে সানট্যান রিমুভাল নিয়ে শুরু হয় দুশ্চিন্তা। মাত্র ১ সপ্তাহেই কীভাবে এই আনইভেন টোন দূর করে স্কিনকে ব্রাইট করা যায়, সেটাই আজ জানাবো।

সানট্যানের কারণ

সূর্যের UVB রশ্মির কারণে আমাদের ত্বকের এপিডার্মিস লেয়ারে মেলানোসাইট সেলস ট্রিগার হয়ে যায়। যার ফলে স্কিনে এক্সেস মেলানিন তৈরি হয়। এই কারণে তখন ত্বকের উপরিভাগে ব্রাউন পিগমেন্ট ভিজিবল হয়, একে বলা হয় সানট্যান। শুধু ঘুরতে গেলেই না, রেগুলার স্কিন কেয়ার স্টেপ হিসেবে সানস্ক্রিন অ্যাপ্লাই করা উচিত। দিনের বেলা বাইরে বের হওয়ার আগে অবশ্যই সানস্ক্রিন অ্যাপ্লাই করুন। বাসায় থাকলে বা মেঘলা দিনেও সানস্ক্রিন স্কিপ করা যাবে না।

ট্যুর থেকে ফিরে সানট্যান রিমুভ করার উপায়

সান প্রোটেকশন ছাড়া কড়া রোদে থাকার কারণে স্কিনে খুব দ্রুত কালচেভাব, স্পটস, এজিং সাইনস চলে আসে। ট্যুরে গেলে সরাসরি রোদে লং টাইম থাকা হয়, এতে স্কিন কয়েক শেইড ডার্ক হয়ে যেতে পারে। চলুন জেনে নেই কীভাবে অল্প সময়েই এই সানট্যান দূর করে ত্বকের উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনা যায়।

 

৩টি ডিফারেন্ট ফেইস মাস্ক 

ট্যুর থেকে ফিরে সানট্যান রিমুভ করার জন্য ফেইস মাস্ক বেশ ভালো কাজ করে। এমন ইনগ্রেডিয়েন্টযুক্ত ফেইস মাস্ক আপনাকে বেছে নিতে হবে যা ভেতর থেকে স্কিনকে ব্রাইট করে তোলে, সানট্যান ও স্পটস দূর করে কম সময়েই। আজ আমি এমনই ৩টি ম্যাজিকাল ফেইস মাস্কের কথা জানাবো যা কালচেভাব দূর করে অল্প সময়ে স্কিনকে উজ্জ্বল করে তুলবে। আপনাদের পছন্দমতো যেকোনো ফেইস মাস্ক বেছে নিতে পারেন। চলুন জেনে নেই তাহলে।

স্কিন ক্যাফে ব্রাইটেনিং মাস্ক

১) ব্রাইটেনিং ফেইস মাস্ক

সানট্যান দূর করতে চন্দন, অরেঞ্জ পিল পাউডার, টারমারিক, শঙ্খ গুঁড়া, মুলতানি মাটি খুবই ভালো কাজ করে। আর এই সবগুলো উপাদান একসাথে পেয়ে যাচ্ছেন Skin Cafe Brightening Mask এ! বিজি লাইফের ইজি সল্যুশন, তাই না? এই প্রত্যেকটি উপাদানের আলাদা আলাদা কার্যকারিতা আছে। চলুন এক নজরে দেখে নেই-

  • চন্দন- কালো দাগ দূর করে স্কিনকে ব্রাইট করে তোলে অল্প সময়েই
  • অরেঞ্জ পিল পাউডার- স্কিনের ডেড সেলস দূর করে ইনস্ট্যান্ট গ্লো এনে দেয়
  • ওয়াইল্ড টারমারিক- রেডনেস, ইচিনেস, একনে, র‍্যাশ কমাতে সাহায্য করে
  • শঙ্খ গুঁড়া- স্কিন হোয়াইটেনিং, অ্যান্টি এজিং ও হিলিং প্রোপারটিজ আছে
  • মুলতানি মাটি- স্কিনকে ডিপলি ক্লিন করে এবং উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনে

তাহলে বুঝতেই পারছেন এই ফেইস মাস্ক ট্যান দূর করে ত্বকের লাবণ্য ও উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনতে কতটা ইফেক্টিভ! চলুন এবার জেনে নেই ব্যবহারবিধি।

কীভাবে ব্যবহার করতে হবে?

ট্যুর থেকে ফিরে সানট্যান রিমুভ করার উপায়

৪ টেবিল চামচ ব্রাইটেনিং মাস্কের সাথে পরিমাণমতো রোজ ওয়াটার মিক্স করে স্মুথ পেস্ট তৈরি করুন। এবার গলায়, হাতে, ফেইসে মানে ট্যানড এরিয়াতে ভালোভাবে অ্যাপ্লাই করে নিন। ১৫ মিনিট রেখে ওয়াশ করে ফেলুন। রোজ ওয়াটার স্কিনকে হাইড্রেটেড রাখতে হেল্প করে। সানট্যান রিমুভালের জন্য সপ্তাহে ২/৩ বার এই মাস্ক অ্যাপ্লাই করুন। অল্প সময়েই স্কিন হয়ে উঠবে উজ্জ্বল, কোমল ও প্রাণবন্ত।

২) অর্গানিক ব্রাইটেনিং উপটান

ডার্ক স্পটস, সানট্যান আর ডাল স্কিন নিয়ে টেনশন? ন্যাচারাল ইনগ্রেডিয়েন্টস দিয়ে ঘরে বসেই ফ্রেশ, ব্রাইট ও স্পটলেস স্কিন পাওয়া সম্ভব। অল স্কিন টাইপে স্যুট করবে এমন একটি অর্গানিক ব্রাইটেনিং উপটান হচ্ছে Lavino Organic Brightening Ubtan। এতে আছে বিভিন্ন হার্বস এর অসাধারণ ব্লেন্ডিং, যা অল্প সময়েই সানট্যান ও স্পটস দূর করে স্কিনের হেলদি গ্লো ফিরিয়ে আনে। এই উপটানের উপকরণ আর গুণাগুণ জেনে নেই চলুন-

  • মুলতানি মাটি, রোজ পেটাল আর যষ্টিমধু- এজিং সাইনস প্রিভেন্ট করে এবং স্কিনটোন ব্রাইট করে
  • নিম, চন্দন, হলুদ- একনে ও একনে স্পটস দূর করে
  • রাইস পাউডার ও অরেঞ্জ পিল পাউডার- সানট্যান ও পিগমেন্টেশন দূর করে

আপনার স্কিন টাইপ যেমনই হোক না কেন, এই ব্রাইটেনিং উপটান নিশ্চিন্তে ইউজ করতে পারেন। তবে ফেইসে অ্যাপ্লাই এর আগে একবার প্যাচ টেস্ট করে নেওয়া ভালো। চলুন জেনে নেই ব্যবহারবিধি।

ট্যুর থেকে ফিরে সানট্যান রিমুভ করতে উপটান

কীভাবে ব্যবহার করতে হবে?

৪ টেবিল চামচ অর্গানিক ব্রাইটেনিং উপটানের সাথে ৩ চা চামচ অ্যালোভেরা জেল মিক্স করে ফেইস, গলা, হাতে অ্যাপ্লাই করুন। ১৫ মিনিট রেখে ওয়াশ করে ফেলুন। সানট্যান রিমুভালের জন্য সপ্তাহে ২/৩ বার এই মাস্ক অ্যাপ্লাই করুন। অ্যালোভেরা জেলও সানট্যান দূর করতে দারুণ কার্যকরী। এটা ত্বকে সুদিং ফিল দেয় এবং ময়েশ্চার রিস্টোর করে।

৩) গ্লোয়িং ফেইস উপটান

আমার হলিগ্রেইল ফেইস মাস্ক হচ্ছে Rajkonna glowing face ubtan। সানট্যান আর ডালনেস দূর করতে ম্যাজিকের মতো কাজ করে এটি! ড্রাই, অয়েলি, নরমাল- সব ধরনের ত্বকে স্যুট করবে। যাদের স্কিনে ব্লেমিশ আর একনে স্কারস আছে, তাদের ক্ষেত্রেও দারুণ কাজ করে। রাজকন্যা গ্লোয়িং ফেইস উপটানের উপকরণ সম্পর্কে জেনে নেই চলুন-

  • বেসন- ট্যান দূর করে, পোরস ক্লিন রাখে
  • চন্দন- সানবার্ন কমিয়ে আনে, স্কিনটোন উজ্জ্বল করে
  • হলুদ ও নিম- একনে প্রিভেন্ট করে, স্কিনকে হেলদি রাখে
  • মুলতানি মাটি- স্কিনকে ডিপলি ক্লিন করে এবং উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনে
  • অরেঞ্জ পিল পাউডার- ব্ল্যাকহেডস, সানট্যান ও স্পটস দূর করে

রাজকন্যা উপটান

কীভাবে ব্যবহার করতে হবে?

৪ টেবিল চামচ গ্লোয়িং ফেইস উপটানের সাথে ২ চা চামচ টকদই মিক্স করে ফেইস, গলা, হাতে অ্যাপ্লাই করুন। ১৫ মিনিট রেখে ওয়াশ করে ফেলুন। সানট্যান রিমুভালের জন্য সপ্তাহে ২/৩ বার এই ফেইস মাস্ক অ্যাপ্লাই করুন। টকদই স্কিনে নারিশমেন্ট প্রোভাইড করে, স্কিনকে সফট রাখে। যাদের স্কিন ডিহাইড্রেটেড, তারা শসার রস এই মাস্কে অ্যাড করতে পারেন।

এক্সফোলিয়েশন

ত্বকের উপরিভাগে যে পিগমেন্টেড ডেড সেলস থাকে সেগুলো রিমুভ করা যায় এক্সফোলিয়েশন বা স্ক্রাবিং এর মাধ্যমে। স্ক্রাব স্কিনকে ডিপলি ক্লিন করে, পোরস থেকে ইমপিওরিটিস বের আনে। যার কারণে স্কিন বেশ হেলদি, ফ্রেশ ও গ্লোয়ি দেখায়। ফেইসের জন্য মাইল্ড বিডসযুক্ত স্ক্রাব বেছে নিন, যেটাতে হার্শনেস ফিল হবে না। হাত পায়ের জন্য আলাদা বডি স্ক্রাব পাওয়া যায়, সেগুলো ইউজ করতে পারেন। সপ্তাহে ১ দিন স্ক্রাবিং করাই এনাফ।

মাইল্ড স্ক্রাব

তাহলে জেনে নিলেন ট্যুর থেকে ফিরে সানট্যান রিমুভ করার সহজ ও কার্যকরী উপায় সম্পর্কে। যেহেতু একেক জনের স্কিন টাইপ একেক রকম, তাই এই দাগ বা কালচে ছোপ দূর হতে কম বেশি সময় লাগতে পারে। সানট্যান রাতারাতি দূর হবে না, একটু সময় দিন, প্রোপার ওয়েতে স্কিন কেয়ার করুন। এই ব্রাইটেনিং মাস্ক ও উপটান প্রাকৃতিকভাবে উজ্জ্বল ত্বক পেতে হেল্প করবে। আর হ্যাঁ, বাইরে বের হওয়ার আগে সানস্ক্রিন অ্যাপ্লাই করতে ভুলবেন না!

অনলাইনে অথেনটিক প্রোডাক্ট কিনতে পারেন শপ.সাজগোজ.কম থেকে অথবা সাজগোজের ৪টি শপ- যমুনা ফিউচার পার্ক, বেইলি রোডের ক্যাপিটাল সিরাজ সেন্টার, উত্তরার পদ্মনগর (জমজম টাওয়ারের বিপরীতে) ও সীমান্ত সম্ভার থেকেও বেছে নিতে পারেন আপনার পছন্দের প্রোডাক্টটি।

 

ছবি- সাজগোজ





Source link