Categories
News

মেট্রোরেল স্টেশনের ডিজিটাল স্ক্রিনে বাংলা না থাকার দাবিটি মিথ্যা


সম্প্রতি ‘মেট্রো রেল স্টেশনে ইংরেজি ও হিন্দিতে গন্তব্য লেখা অথচ বাংলা নেই।’ শীর্ষক শিরোনামে একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। 

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে,এখানে, এখানে, এখানেএখানে। পোস্টগুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে, এখানে

এছাড়া ভাইরাল এই ছবিটিকে ভুয়া দাবি করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে। আর্কাইভ দেখুন এখানে, এখানে

ছবিটিকে ভুয়া দাবি করে গণমাধ্যমের প্রতিবেদন দেখুন সময়ের আলো। 

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, ‘মেট্রোরেল স্টেশনে ইংরেজি ও হিন্দিতে গন্তব্য লেখা থাকলেও বাংলা না থাকার’ দাবিটি সঠিক নয় বরং মেট্রোরেল উদ্বোধনের পর স্টেশনের ডিজিটাল স্ক্রিনগুলোতে স্টেশনের নাম বাংলা ও ইংরেজিতেই দেখা গেছে। 

কি-ওয়ার্ড অনুসন্ধানের মাধ্যমে বেসরকারি টেলিভিশন My TV এর ইউটিউব চ্যানেলে ২০২২ সালের ২৯ ডিসেম্বর ‘শীতের সকালে মেট্রোরেল ভ্রমণ‘ শীর্ষক শিরোনামে প্রচারিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। 

ভিডিওটিতে দেখা যায়, টেলিভিশনটির একজন সাংবাদিক মেট্রোরেলের উত্তরা ও আগরগাঁও স্টেশনের স্থাপনা ও মেট্রোরেলের ভ্রমণ সংক্রান্ত তথ্যাদি দর্শকদের জানাচ্ছিলেন। 

ভিডিওটির ১২ মিনিট ২০ সেকেন্ডের মাথায় আগারগাঁও স্টেশনের একটি ডিজিটাল স্ক্রিনের ছবি দেখা যায়। ছবিটিতে স্টেশনের নামে বাংলা ও ইংরেজিতে ‘আগারগাঁও’ লেখা দেখা যায়। তবে কোনো হিন্দি লেখা দেখা যায়নি।

এছাড়া Uplift Bangladesh নামের একটি ফেসবুক পেইজে মেট্রোরেল উদ্বোধনের পর ধারণকৃত ‘কেমন ছিলো মেট্রোরেলের অভিজ্ঞতা? একবারে মন ভরছে না! | Dhaka Metro Rail Trip‘ শীর্ষক শিরোনামে প্রচারিত একটি ভিডিওতেও ‘আগারগাঁও’ স্টেশনের নাম বাংলা ও ইংরেজিতেই পাওয়া যায়। 

পাশাপাশি রিউমর স্ক্যানারের ওপেন সোর্স অনুসন্ধানেও আগারগাঁও বাংলা ও ইংরেজিতে লেখা সম্বলিত ডিজিটাল স্ক্রিনের একাধিক ছবি খুঁজে পাওয়া যায়। 

তবে শুধু আগারগাঁওই নয়, মেট্রোরেলের অন্যান্য ডিজিটাল স্ক্রিনেও হিন্দি লেখার কোনো অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায়নি। বরং সেসব ছবিতে বাংলা ও ইংরেজিতেই স্টেশনের নাম সহ অন্যান্য নির্দেশনা খুঁজে পাওয়া যায়। 

Md Wasim Akram নামে মেট্রোরেল স্টেশনে দায়িত্ব পালন করা একজন স্কাউট সদস্যের ফেসবুক পেইজে প্রচারিত একটি লাইভ ভিডিওতে ‘উত্তরা উত্তর’ স্টেশনকে বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় উপস্থাপন করতে দেখা যায়। 

Md Sumon Reza নামে জনৈক ব্যক্তির মেট্রোরেল স্টেশনে একটি ডিজিটাল স্ক্রিনের সামনে তোলা ছবিতে বাংলায় ‘এখানে শেষ করুন’, ইংরেজিতে Terminates Here লেখা খুঁজে পাওয়া যায়। 

ডিজিটাল স্ক্রিন ছাড়াও মেট্রোরেলের কোচগুলোতেও ব্যবহৃত স্ক্রিনেও বাংলা ও ইংরেজি ভাষা খুঁজে পাওয়া যায়। 

পরবর্তীতে এই বিষয়ে আরও জানতে রিউমর স্ক্যানার টিম মেট্রোরেলের পরিচালনাকারী সংস্থা ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল) এর সিস্টেম এনালিস্ট মুহাম্মদ আব্দুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি রিউমর স্ক্যানারকে জানান, ডিসপ্লেতে শুধুমাত্র বাংলা এবং ইংলিশে দেখানোর ব্যবস্থা আছে। 

উপরিউক্ত তথ্যসমূহ পর্যালোচনা করে দেখা যায়, মেট্রোরেলের ডিজিটাল স্ক্রিনে কেবল বাংলা ও ইংরেজি ভাষারই উপস্থিতি রয়েছে। আগারগাঁও বা উত্তরা স্টেশনে অথবা মেট্রোরেলের অন্যান্য আনুষঙ্গিক বিষয়ে কোথাও হিন্দি ভাষার ব্যবহার নেই।

তাহলে ডিজিটাল স্ক্রিনে হিন্দি লেখার উপস্থিতির রহস্য কি?

মেট্রোরেলের স্টেশনে হিন্দি লেখা সম্বলিত ছবিটিকে গণমাধ্যম সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীদের কেউ কেউ ভুয়া, এডিটেড আবার কেউ কেউ ভারতের আগারগাঁও মেট্রোরেল স্টেশনের ছবি বলে দাবি করলেও রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, হিন্দি লেখা সম্বলিত ডিজিটাল স্ক্রিনটি বাংলাদেশের ই। অর্থাৎ, ছবিটি এডিটেড বা ভুয়া নয়।

অনুসন্ধানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইউটিউবে Sam Zone নামের একটি চ্যানেলে গত ১৬ নভেম্বর ‘ঘুরে আসলাম স্বপ্নের মেট্রোরেল স্টেশন। বাংলাদেশইতো এখন দুবাই দুবাই ফিল!’ শীর্ষক শিরোনামে প্রচারিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। 

মেট্রোরেল উদ্বোধনের প্রায় এক মাস আগে ধারণকৃত এই ভিডিওটিতে দেখা যায়, স্টেশনের ডিজিটাল স্ক্রিনগুলোতে ইংরেজির পাশাপাশি হিন্দি ভাষায় লেখা রয়েছে।

তবে একই সময়ে হিন্দি, ইংরেজির পাশাপাশি বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় লেখা ডিজিটাল স্ক্রিনও উক্ত ভিডিওতে খুঁজে পাওয়া যায়।

অর্থাৎ, এক মাস পূর্বে কাজ চলাকালীন সময়ে মেট্রোরেলের স্টেশনে বাংলা, ইংরেজির পাশাপাশি হিন্দি ভাষারও উপস্থিতি ছিল।

মেট্রোরেলের স্টেশনে হিন্দি ভাষা কিভাবে এলো?

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, ঢাকা মেট্রোরেলের বৈদ্যুতিক এবং যান্ত্রিক সিস্টেমের কাজগুলো করেছে L&T Construction নামের একটি প্রতিষ্ঠান।

L&T Construction হল ভারতীয় প্রযুক্তি, প্রকৌশল, নির্মাণ নিয়ে কাজ করা Larsen & Toubro (L&T) এর একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। এটি ১৯৩৮ সালে ভারতের মুম্বাইয়ে যাত্রা শুরু করে এবং ভারত সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মেট্রোরেলের কাজ করেছে৷ 

যেহেতু ভারতীয় প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিষ্ঠান ঢাকার মেট্রোরেলের স্টেশনগুলোতে বৈদ্যুতিক এবং যান্ত্রিক সিস্টেমের কাজগুলো করেছে, তাই হিন্দি ভাষা এখানে প্রাথমিকভাবে ডিফল্ট হিসেবে থাকতে পারে বলে রিউমর স্ক্যানারের বিশ্লেষণে প্রতীয়মান হয়। 

এছাড়া Samir Patuakhali নামের একটি ফেসবুক পেইজে মেট্রোরেলের স্টেশনগুলোতে নির্মাণকালীন সময়ের অক্টোবর ও নভেম্বর মাসের কিছু ভিডিও ফুটেজ খুঁজে পাওয়া যায়। 

এসব ভিডিও ফুটেজ থেকে রিউমর স্ক্যানার টিম আরও নিশ্চিত হয় যে, ডিজিটাল স্ক্রিনে হিন্দি ভাষা আসার বিষয়টি কারিগরি কারণেই হয়েছে।

উল্লেখ্য, বিষয়টি নিয়ে অধিক নিশ্চিত হতে রিউমর স্ক্যানার টিম ইতোমধ্যে Larsen & Toubro (L&T) কে ইমেইল করেছে এবং প্রতিষ্ঠানটির একাধিক কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছে৷ তবে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত উক্ত প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিদের থেকে উত্তর পাওয়া যায়নি। পরবর্তীতে উত্তর পেলে প্রতিবেদনটি হালনাগাদ করা হবে৷ 

মূলত, গত বছরের ২৮ ডিসেম্বর ঢাকা মেট্রোরেলের উদ্বোধনের পর থেকে মেট্রোরেলের আগারগাঁও স্টেশনের হিন্দি ভাষায় লেখা একটি ডিজিটাল স্ক্রিনের ছবি ফেসবুকে ‘মেট্রো রেল স্টেশনে ইংরেজি ও হিন্দিতে গন্তব্য লেখা অথচ বাংলা নেই’ শীর্ষক দাবিতে ছড়িয়ে পড়ে। তবে রিউমর স্ক্যানারের অনুসন্ধানে মেট্রোরেলের স্টেশনগুলোর ডিজিটাল স্ক্রিনে বর্তমানে বাংলা ও ইংরেজি ভাষার উপস্থিতি থাকলেও হিন্দি ভাষার উপস্থিতি পাওয়া যায়নি। বিপরীতে অনুসন্ধানে দেখা যায়, মেট্রোরেলের উদ্বোধনের পূর্বে নির্মাণ কাজ চলাকালীন সময়ে স্টেশনের ডিজিটাল স্ক্রিনগুলোতে ইংরেজি ও হিন্দি ভাষায় লেখা ছিল। পাশাপাশি একই সময়ে বাংলা ভাষার উপস্থিতিও দেখা যায়। যেহেতু ভারতীয় প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিষ্ঠান L&T Construction ঢাকার মেট্রোরেলের স্টেশনগুলোতে বৈদ্যুতিক এবং যান্ত্রিক সিস্টেমের কাজগুলো করেছে, তাই হিন্দি ভাষা স্ক্রিনগুলোতে প্রাথমিকভাবে ডিফল্ট হিসেবে থাকতে পারে। 

সুতরাং, ‘মেট্রোরেল স্টেশনে ইংরেজি ও হিন্দিতে গন্তব্য লেখা অথচ বাংলা নেই’ শীর্ষক দাবিটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। 

তথ্যসূত্র 

My TV: শীতের সকালে মেট্রোরেল ভ্রমণ

Uplift Bangladesh: কেমন ছিলো মেট্রোরেলের অভিজ্ঞতা? একবারে মন ভরছে না! | Dhaka Metro Rail Trip

Md Wasim Akram: Metro Rail Station 

Md Sumon Reza: Metro Rail Station Picture

Sam Zone: ঘুরে আসলাম স্বপ্নের মেট্রোরেল স্টেশন। বাংলাদেশইতো এখন দুবাই দুবাই ফিল!

L&T Construction: Building Bangladesh’s first Mass Rapid Transit System

L&T Construction: About L&T Construction

Samir Patuakhali: Metro Rail Station Video

Conversation with system analyst of DMTCL

Rumor Scanner Own Analysis



Source link