Categories
স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা

১০ লাখ টাকার কমলা বিক্রির আশা চাষি খয়বর আলীর!


হাজী খয়বর আলীর ১০ লাখ টাকার কমলা বিক্রির আশা!

নওগাঁয় কমলা চাষে সফলতা পান আলহাজ্ব খয়বর আলী মন্ডল। কমলা দেখতে সুন্দর ও খেতে সুস্বাদু বলে তিনি শখের বশে তার পতিত জমিতে রোপন করেন। তারপর বাণিজ্যিকভাবে ১ একর জমিতে ৬ প্রজাতির কমলা গাছ রোপন করে সফলতা পান। এবছর ৮-১০ লাখ টাকার কমলা বিক্রির আশা করছেন।

জানা যায়, আলহাজ্ব খয়বর আলী মন্ডল নওগাঁর মান্দা উপজেলার ৭ নম্বর প্রসাদপুর ইউনিয়নের গাড়িক্ষেত্র গ্রামের বাসিন্দা। দেড় বছর আগে শখের বশে কমলা চাষ শুরু করার পর এখন বাণিজ্যিকভাবে ১ একর জায়গায় কমলা চাষ করছেন। বর্তমানে তার ১ একর কমলা বাগানে ৬ প্রজাতির ৪০০ টি কমলা গাছ রয়েছে। তিনি এবছর লাভবান হলে আগামীতে আরো বেশি জমিতে কমলার চাষ করবেন।

চাষি খয়বর আলী বলেন, আমি প্রায় দেড় বছর আগে শখের বশে কমলার বাগান করার চিন্তা করি। তারপর বিভিন্ন স্থান থেকে চারা সংগ্রহ করে রোপন করি। এবছর আমার বাগানের অধিকাংশ গাছে ফুল ও ফল এসেছে। ইতোমধ্যে একেকটি গাছ থেকে ৩-১৫ কেজি পর্যন্ত কমলা উত্তোলন করে বিক্রি করেছি।

তিনি আরো বলেন, বাগানে এখন পর্যন্ত ৫ লক্ষ টাকা খরচ হয়েছে। পাইকাররা বাগানে এসে কমলা নিয়ে যাচ্ছেন। প্রতি মণ কমলা ৩৮০০ টাকা দরে বিক্রি করছি। আশা করছি এবছর ৮-১০ লাখ টাকার কমলা বিক্রি করতে পারবো।

কমলা ছাড়াও তার বাগানে পাকিস্তানি বারি-১ ও ভিয়েতনাম মাল্টা সহ তিনফল, আলুবোখরা, কিসফল, কাজুবাদাম, করমচা, আঙ্গুর, রামবুটান, পার্সিমূল, পানমসলা, কাশ্মীরি আপেলকুল, বলোসুন্দরীকুল ফলের গাছ রয়েছে।

বাগানি হাজী খয়বর আলীর বাগানের প্রায় প্রতিটি গাছেই কমলা ধরেছে। প্রতিদিন অনেক মানুষ তার বাগান দেখতে ভীড় করেন। কমলার বাগান করে তিনি আশেপাশের বিভিন্ন এলাকার তার সুনাম ছড়িয়ে পড়েছে। আবার অনেকেই তার সফলতা দেখে পরামর্শ নিয়ে কমলা বাগান করার আগ্রহ প্রকাশ করেন।



Source link