Categories
Tips and Tricks

ফেইক ক্রিপ্টো মাইনিং অ্যাপ কীভাবে কাজ করে? বেঁচে থাকবেন যেভাবে | Techtunes


আসসালামু আলাইকুম টেকটিউনস কমিউনিটি, কেমন আছেন সবাই? আশা করছি ভাল আছেন। বরাবরেই মত আজকেও চলে এসেছি নতুন টিউন নিয়ে।

ক্রিপ্টো মাইনিং বাড়ছে, গত কয়েক বছরে এটি উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। ডিজিটাল এই কারেন্সির ব্যাপক সম্ভাবনা থাকায় মানুষ এই মাইনিং এর দিকে ব্যাপক আগ্রহ দেখাচ্ছে। ক্রিপ্টো মাইনিং বিষয়টি লোভনীয় এবং ধনি হবার পথ আপনাকে দেখালেও, আপনি যদি অ্যান্ড্রয়েড ইউজার হোন তাহলে আপনাকে যথেষ্ট সতর্ক থাকতে হবে। ছোট ভুলে বড় ধরনের স্ক্যামের শিকার হতে পারেন।

অ্যান্ড্রয়েড ক্রিপ্টো মাইনিং স্ক্যাম

ক্রিপ্টো কারেন্সি মাইনিং এর ক্রেজ দেখে স্ক্যামাররা মাইনিং এর ফেক অ্যাপ তৈরি করা শুরু করেছে। সব ধরনের ইউজাররাই এই অ্যাপ গুলো ব্যবহার করার সুযোগ পায় এমনকি কখনো কখনো প্লে-স্টোর ও ফেক অ্যাপ ডিটেক্ট করতে পারে না।

এমনকি কিছু কিছু অ্যাপ পেইড। আপনাকে টাকা দিয়ে এই সব অ্যাপ কিনতে হবে মাইনিং করার জন্য। ফলে আপনি যদি বুঝতেও পারেন অ্যাপটি ফেক ততক্ষণে আপনার অনেক টাকা চলে যাবে।

গুগল কিছু অ্যাপ সফল ভাবে প্লে-স্টোর থেকে রিমুভ করেছে তারপরেও প্রশ্ন থেকে যায় Play Store কি পুরোপুরি সেইফ? কিছু কিছু অ্যাপ কোন ধরনের সন্দেহ জনক কাজও করে না, ইউজার যাতে অ্যাপে পেমেন্ট করে এজন্য তাদের বিভিন্ন অফার দেয়া হয়। দেখতে লিগ্যাল মনে হলেও ইউজাররা এই সমস্ত অ্যাপ থেকে আলটিমেটলি কিছুই পায় না।

স্ক্যাম ক্রিপ্টো মাইনিং অ্যাপ কিভাবে কাজ করে?

প্রথমত তারা ক্লাউড মাইনিং সার্ভিস অফার করে, বলা হয় আপনাকে ভাল রিটার্ন দেয়া হবে। তারা আপনাকে বলবে মাইনিং করার জন্য কোন হার্ডওয়্যার কিনতে হবে না, ফোনের মাধ্যমেও কয়েন মাইন করতে পারবেন। আর এইভাবেই ইউজাররা তাদের দিকে আকৃষ্ট হয়।

কিন্তু সত্য কথা হচ্ছে ক্লাউড মাইনিং এখনো লিগ্যাল না হওয়ায়, এই ধরনের বিজনেস মডেল এখনো সফল হতে পারে নি। যদিও কিছু আছে সেগুলোও খুব লিমিটেড। যদি ফেক অ্যাপ দাবী করে আপনাকে ক্লাউড মাইনিং এর সাথে কানেক্ট করে দেবে সেটা ধোঁকা ছাড়া আর কিছুই নয়।

এই ধরনের অ্যাপ ইন্সটল দিয়ে ওপেন করলে, আপনাকে একটি ড্যাশ-বোর্ড দেখাবে, সেখানে দেখবেন হ্যাশ মাইনিং হচ্ছে। প্রথম দিকে হ্যাশ রেট নিচের দিকে থাকবে, আপনাকে এটা বাড়ানোর জন্য ক্লাউড হার্ডওয়্যার আপগ্রেড করতে বলা হবে। এবং বলা হবে আপগ্রেডের পর বেশি রিওয়ার্ড পাওয়া যাবে।

কিছু ক্ষেত্রে বেশি রিওয়ার্ডের জন্য আপনাকে সাবস্ক্রাইব এর অপশনও দেয়া হবে।

বিভিন্ন ধরনের ফেক ক্লাউড মাইনিং অ্যাপ

Lookout Security, এর তথ্য মতে এই সমস্ত অ্যাপকে দুটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয় যেমন, BitScam এবং CloudScam। পেমেন্ট Google Play in-app purchases, এ নেওয়া হবে আপনি ভাববেন এটা আসলেই বৈধ অ্যাপ। CloudScam অ্যাপ এর ক্ষেত্রে এমন হবে।

অন্যদিকে BitScam মাইনিং অ্যাপ এর ক্ষেত্রে তারা Bitcoin এবং Ethereum এর মাধ্যমে পেমেন্ট সাপোর্ট করবে। তারা অন্য পেমেন্ট মেথড ব্যবহার করতে পারলেও সব সময় বৈধ গেটওয়ে ব্যবহার করবে যেন কেউ সন্দেহ না করে।

কিভাবে ফেক অ্যাপ থেকে দূরে থাকবেন

কিছু বিষয় খেয়াল রাখলে আপনি এই ধরনের স্ক্যাম থেকে নিজেকে রক্ষা কর‍তে পারবেন। চলুন কিছু বিষয় দেখে নেয়া যাক,

  • অ্যাপ এর রিভিউ এ যান শুরু রিলেভেন্ট রিভিউ না পড়ে রিসেন্ট রিভিউ গুলোও পড়ুন।
  • নিশ্চিত হোন ডেভেলপার সুনামধন্য কেউ কিনা, এর আগে তার কোন জনপ্রিয় অ্যাপ আছে কিনা
  • মনে রাখবে ইন্সটল করার সময় কিছু অ্যাপ সেফটি চেক ফাকি দিয়ে যেতে পারে তাই প্লে-স্টোর এর বাইরে থেকে কোন অ্যাপ ইন্সটল দেবেন না।
  • অ্যাপ এ কি কি পারমিশন দিচ্ছেন সেটার দিকে নজর রাখুন
  • অ্যাপ এর terms and conditions পড়ুন। ফেক অ্যাপ এর টার্ম এন্ড কন্ডিশন এত ডিটেইলে থাকবে না।

শেষ কথা

ক্রিপটোকারেন্সির ক্রেজ খুব তাড়াতাড়ি শেষ হবে না তাই কোথাও ক্রিপটোকারেন্সির কোন সার্ভিস দেখলেই সেটা ভেরিফাই করুন এবং নিশ্চিত হোন এটা নিরাপদ কিনা। গুগল প্রতিনিয়ত এই সমস্ত অ্যাপ প্রতিহত করার চেষ্টা করছে তারপরেও আপনাকে নতুন অ্যাপ ইন্সটল দেবার সময় সচেতন থাকতে হবে।

ফেক ক্রিপ্টো মাইনিং অ্যাপ এখন খুবই কমন হয়ে যাচ্ছে। ভবিষ্যতে হয়তো নিজেদের আরও প্রতিশ্রুতিবদ্ধ করে উপস্থাপন করবে। যাই হোক আপনি নিজেকে এর থেকে নিরাপদ রাখুন।

তো কেমন হল আজকের এই টিউন জানাতে টিউমেন্ট করুন, আজকে এই পর্যন্তই পরবর্তী টিউন পর্যন্ত ভাল থাকুন আল্লাহ হাফেজ।



Source link

Leave a Reply