Categories
টেকনোলজি

Latest Top 6 Best Gadgets


গাইস প্রতিদিন আমরা অনেক ধরনের গ্যাজেট ইউস করে থাকি, গ্যাজেট আমাদের কাজকে ইজি করার সাথে সাথে আমাদের লাইফকে আরো অনেক বেশি এডভান্স বানিয়ে থাকে। দিনের শুরু থেকে রাত পর্যন্ত আমরা সবাই গ্যাজেট ইউস করে থাকি। আজকের গ্যাজেট সিরিজে জানতে চলেছেন Latest Top 6 Best Gadgets সম্পর্কে। নিয়মিত Awesome Gadgets, Latest Gadgets, Most Useful Gadgets, New Gadgets সম্পর্কে জানতে আমাদের সাথে জুড়ে থাকুন।

Number 6. F189 Pro Drone

আজকের গ্যাজেট লিস্টে শুরু করবো একটি ড্রোন দিয়ে। নরমালি আমরা এরিয়াল ফটোগ্রাফি বা ভিডিওগ্রাফি অথবা ফান পারপাসে ড্রোনের ইউজ করে থাকি আর যদি আপনি বাজেটের মাঝে এডভান্স লেভেলের ড্রোন নিতে চান তাহলে দেখে নিতে পারেন এ ড্রোনটি। ড্রোনটি দেখতে গুড লুকিং আর এটা ফোল্ডেবল ফিচারের সাথে আসে এরফলে ইজিলি আপনার সাথে কেরি করতে পারবেন। ড্রোনটিকে কন্ট্রোল করার জন্য পেয়ে যাবেন এক রিমোর্ট কন্ট্রোলার আর এটার হেল্পে ড্রোনটিকে ফুল্লি কন্ট্রোল করতে পারবেন, এছাড়া এটার মাঝে দেওয়া হয়েছে ফোরকে ক্যামেরা এরফলে এটার হেল্পে প্রফেশনাল লেভেলের ফটোস অ্যান্ড ভিডিওস শুট করতে পারবেন। আর এটার রিমোর্টের হেল্পে ক্যামেরাকে রোটেট করতে পারবেন। ড্রোনটি স্টিবিলিটির সাথে ফ্লাই করে থাকে, এছাড়া এটার মাঝে ডুয়েল ক্যামেরা ফিচার দেওয়া হয়েছে। এটার সাথে আসা রিমোর্ট কন্ট্রোলারের মাঝে আপনার ফোন এটাচ করে লাইভ ভিডিও দেখতে পারবেন এবং শুট করতে পারবেন, ফটোস ক্লিক করতে পারবেন। এছাড়া ড্রোনটির মাঝে আরো অনেক ধরনের ফিচার দেওয়া হয়েছে, যেমন- অবস্টিক্যাল এভয়েট ফিচার, মানে ড্রোনের সামনে কিছু আসলে ড্রোনটি অন্য দিকে মুভ করবে, জেস্টার ফিচার মানে হাতের ইশারায় ফটোস অ্যান্ড ভিডিওস শুট করতে পারবেন, ট্রাজেকটরি ফ্লাইট মুড ফিচার, থ্রি সিক্সটি ডিগ্রি ফ্লিপ ফিচার এটার মাঝে পেয়ে যাবেন। গাইস এ ধরনের ড্রোন আজকের ডেটে সত্যি অনেক ইউজফুল হয়ে থাকে, আর এটাকে ইনডোর হোক বা আউটডোর ইজিলি ফ্লাই করতে পারবেন। যদি বলা হয় এ ড্রোনটির প্রাইজের কথা তাহলে দারাজ থেকে মাত্র ছয় হাজার ছয়শ বিশ (৬৬২০) টাকার মাঝেই পার্চেস করতে পারবেন।

Number 5. Remax K4 Phone Cooler

নাম্বার ফাইভের গ্যাজেট্টি রাখা হয়েছে একটি স্মার্টফোন গ্যাজেট। নরমালি দেখা যায় স্মার্টফোন লং টাইম ইউজ করলে ফোন গরম হয়ে যায় এছাড়া ভিডিও গেমস প্লে করলে ফোন গরম হয়ে যায় আর গেমের মাঝে ল্যাগ করা শুরু করে দেয়, এমন প্রব্লেমের জন্য ইউজ করতে পারেন এ গ্যাজেট্টি আর এটা একটি এডভান্স ফোন কুলার। গ্যাজেট্টির মাঝে ইউজ করা হয়েছে ডুয়েল কুলিং ফিচার এরফলে এটা আপনার ফোনের হিট খুব সহজেই রিডিউস করে দিবে। আর যদি বলা হয় এটাকে ইউজের কথা তাহলে সিমপ্লি গ্যাজেট্টিকে আপনার ফোনের ব্যাক সাইডে লাগিয়ে নিতে হবে, এরপরে এটার সাথে আসা ক্যাবলের হেল্পে পাওয়ার দিতে হবে, আপনি পাওয়ার ব্যাংক দিয়েও পাওয়ার দিতে পারবেন। দ্যান রেডি হয়ে যাবে ইউজের জন্য। কুলারের ব্যাক সাইডে তিনটি বাটন দেওয়া হয়েছে অন-অফ বাটন, ফ্যানের স্পিড কম বেশির বাটন। কুলারের মাঝে ইউজ করা হয়েছে RGB লাইট ফিচার এরফলে এটা দেখতে অনেক কুল লাগে। এ ফোন কুলারের বিশেষ ফিচার হচ্ছে এটার মাঝে দেওয়া হয়েছে টেম্পারেচার ডিসপ্লে ফিচার এরফলে আপনার ফোনের টেম্পারেচার লাইভ দেখতে পারবেন এবং এটা ইউজ করার পরে কতোটা রিডিউস হয়েছে তাও দেখতে পারবেন। গাইস এ ধরনের কুলিং সিস্টেম স্মার্টফোন গেমারদের জন্য অনেক ইউজফুল হয়ে থাকে আর যদি বলা হয় এটার প্রাইসের কথা তাহলে দারাজ থেকে মাত্র এক হাজার ছয়শ পঞ্চাশ (১৬৫০) টাকার মাঝেই পার্চেস করতে পারবেন।

Number 4. K109 Nano Drone

নাম্বার ফোরের গ্যাজেট্টি রাখা হয়েছে একটি কিউট ড্রোন আর এটাকে কন্ট্রোল করার জন্য পেয়ে যাবেন এক এডভান্স লেভেলের রিমোর্ট কন্ট্রোলার। ড্রোনটিকে ডিজাইন করা হয়েছে ইউনিকভাবে যা দেখতে অনেক কিউট লাগে, আর যদি বলা হয় এটাকে কেরি করার কথা তাহলে এটার সাথে আসা রিমোর্টের মাঝেই কেরি করতে পারবেন। ড্রোনটির মাঝে দেওয়া হয়েছে RGB লাইট ফিচার যা দেখতে অনেক অ্যামেজিং লাগে, আর ফোল্ডেবল ফিচার থাকায় ইজিলি কেরি করতে পারবেন। ড্রোনটির মাঝে ইউজ করা হয়েছে ওয়ানকে টেক অফ ফিচারের সাথে সাথে ওয়ানকে ল্যান্ডিং ফিচার এরফলে ইজিলি যেকেউ ফ্লাই করতে পারবে। এছাড়া এডজাস্টেবল ক্যামেরা ফিচার আর এটার হেল্পে ফটোস অ্যান্ড ভিডিওস ইজিলি শুট করতে পারবেন। ড্রোনটির মাঝে দেওয়া হয়েছে অবস্টিক্যাল এভয়েট ফিচার এরফলে এটার সামনে কিছু আসলে ড্রোনটি নিজে থেকেই রুট চ্যাঞ্জ করে নিবে, রিয়েল টাইম ট্রান্সমিশন ফিচার মানে আপনি এটাকে ফ্লাই করার সময় আপনার স্মার্টফোনে লাইভ দেখতে পারবেন এবং রেকোর্ড করতে পারবেন। জেস্টার কন্ট্রোল ফিচারও এটার মাঝে দেওয়া হয়েছে এরফলে আপনার হাতের ইশারায় ফটোস অ্যান্ড ভিডিওস শুট করতে পারবেন। এছাড়া আরো অনেক ধরনের ফিচার এটার মাঝে পেয়ে যাবেন। আর যদি বলা হয় স্মার্ট এ ড্রোনটির প্রাইজের কথা তাহলে ড্রোন ফ্লাই বিডি থেকে মাত্র পাঁচ হাজার পাঁচশ (৫৫০০) টাকার মাঝেই পার্চেস করতে পারবেন।

Number 3. Zapp Light

গাইস অনেক সময় দেখা যায় মশা মাছির উৎপাত অনেক বেড়ে যায় আর রাতের সময় তো মশার জন্য ঘুমানোও অনেক কস্টকর হয়ে থাকে, এছাড়া এই মশা মাছির জন্য অনেক ধরনের রোগ-ব্যাদি হয়ে থাকে, এমন প্রব্লেম থেকে বাঁচার জন্য ইউজ করতে পারেন এ গ্যাজেট্টি, আর এটাকে একটি LED জ্যাপ লাইট। যদি বলা হয় এটাকে ইউজের কথা তাহলে সিমপ্লি আপনার নরমাল LED বাল্পের জায়গায় এটাকে লাগিয়ে দিতে হবে দ্যান রেডি হয়ে যাবে ইউজের জন্য। গ্যাজেট্টির মাঝে ইউজ করা হয়েছে ব্লু লাইট ফিচার এরফলে মশা মাছি এটার দিকে চলে আসে আর এটার মাঝে আসার পরে গ্যাজেট্টি শক দিয়ে মেড়ে ফেলে। গাইস গ্যাজেট্টির ইউজ অ্যান্ড ফিচার সিম্পল হলেও কাজ করে থাকে এডভান্স লেভেলের। আর এটাকে টু ইন ওয়ান গ্যাজেটও বলতে পারেন। আজকের ডেটে এ ধরনের গ্যাজেট্টি সত্যি অনেক ইউজফুল হয়ে থাকে। আর যদি বলা হয় এটার প্রাইসের কথা তাহলে বাংলাদেশ থেকেই ছয়শ পঞ্চাশ (৬৫০) টাকার মাঝেই পার্চেস করতে পারবেন।

Number 2. Xiaomi Mijia Night Light

নাম্বার টুর গ্যাজেট্টি রাখা হয়েছে একটি স্মার্ট লাইট আর এটাকে স্মার্ট বলার কারণ হচ্ছে এটার মাঝে দেওয়া হয়েছে মাল্টিপল ফিচার। ফাস্ট অফ অল লাইটটি এটাচ অ্যান্ড ডিটাচেবল এরফলে ইজিলি লাইট্টিকে এটার ম্যাগনিটিভ এটাচমেন্টের সাথে এটাচ করে ইউজ করতে পারবেন। থ্রি সিক্সটি ডেস ব্যাটারি লাইফের সাথে সাথে এটাকে যেকোণো প্লেসের মাঝে ইউজ করতে পারবেন। স্মার্ট এ লাইট্টির বিশেষ ফিচার হচ্ছে এটার মাঝে মোশন ডিটেকশন ফিচারের দেওয়া হয়েছে এরফলে এটার কাছে আসলে অটোম্যাটিক অন হয়ে যাবে এবং পারসোন চলে গেলে অটোম্যাটিক অফ হয়ে যাবে। স্মার্ট এ লাইট্টির মাঝে ওয়ার্ম অ্যান্ড হোয়াই গ্লো লাইট ইফেক্ট দেওয়া হয়েছে, এরফলে আপনার প্রয়োজনের একোর্ডিং কালার ইফেক্ট ইউজ করতে পারবেন। এছাড়া এটাকে পড়ার টেবিলে, ডেস্কের মাঝে, ওয়াশ রুমে, ইভেন যেকোণো প্লেসের মাঝে ইউজ করতে পারবেন। স্মার্ট এ লাইট্টির মাঝে ব্লুতুথ কানেক্টিভিটি ফিচার দেওয়া হয়েছে, মানে আপনার ফোনের হেল্পে এটাকে কন্ট্রোল করতে পারবেন। এছারা এটার মাঝে থ্রি সিক্সটি ডিগ্রি রোটেটিং ফিচার দেওয়া হয়েছে, এরফলে আপনার প্রয়োজনের একোর্ডিং এটাকে মুভ করতে পারবেন। গাইস এ ধরনের লাইট সত্যি অনেক কাজের হয়ে থাকে। আর যদি বলা হয় এটার প্রাইসের কথা তাহলে দারাজ থেকে মাত্র এক হাজার চারশ নব্বই (১৪৯০) টাকার মাঝেই পার্চেস করতে পারবেন।

Number 1. OAS Air 2S Drone

নাম্বার ওয়ানের গ্যাজেট্টি রাখা হয়েছে একটি এডভান্স লেভেলের ড্রোন আর এটার লুকস অ্যান্ড ডিজাইন একদমি ইউনিক রাখা হয়েছে। ড্রোনটির মাঝে আপনি অনেক ধরনের ফিচার পেয়ে যাবেন, ফাস্ট অফ অল এটা ফোল্ডেবল ড্রোন এরফলে ইজিলি কেরি করতে পারবেন। এটার মাঝে ইউজ করা হয়েছে মডুলার ব্যাটারি এরফলে ব্যাটারি চ্যাঞ্জ করেও এটাকে ফ্লাই করতে পারবেন, ওয়ানকে টেক অফ ফিচারের সাথে সাথে ওয়ানকে ল্যান্ডিং ফিচার এটার মাঝে দেওয়া হয়েছে, এরফল যেকোণো পারসোন ইজিলি এটাকে ফ্লাই করতে পারবে। ড্রোনটিকে কোন্ট্রোল করার জন্য এক রিমোর্ট কন্ট্রোলার পেয়ে যাবেন, আর এটার মাঝে আপনার ফোন এটাচ করে লাইভ ভিডিও দেখতে অ্যান্ড রেকোর্ড করতে পারবেন, ফটোস ক্লিক করতে পারবেন। অপটিক্যাল ফ্লো ফিচার এটার মাঝে দেওয়া হয়েছে, এরফলে এটাকে এক জায়গায় স্থির করে ফ্লাই করতে পারবেন, এছাড়া অবস্টিক্যাল এভয়েট ফিচারও এটার মাঝে পেয়ে যাবেন, আর এ ফিচার থাকার ফলে ড্রোনটির সামনে কিছু আসলে নিজে থেকে রুট চ্যাঞ্জ করে নিবে। ড্রোনটির মাঝে ইউজ করা হয়েছে ডুয়েল ক্যামেরা ফিচার, রিয়েল টাইম সুপার ভিশন, থ্রি ডি ফ্লিপস মুড, জেস্টার কন্ট্রোল ফিচার, মানে আপনার হাতের ইশারায় ফটোস অ্যান্ড ভিডিও রেকোর্ড করতে পারবেন। অভার অল দেখা যায় ফিচারের ফিক দিয়ে এটার মাঝে কোণো কুমতি রাখা হয়নি। আর যদি বলা হয় এটার প্রাইসের কথা তাহলে বডি স্টোল থেকে মাত্র পাঁচ হাজার আটশ (৫৮০০) টাকার মাঝেই পার্চেস করতে পারবেন।

গাইস আইহোপ আজকের Latest Top 6 Best Gadgets লিস্টি আপনাদের অনেক ভালো লেগেছে। নিয়মিত Awesome Gadgets, Latest Gadgets, Most Useful Gadgets, New Gadgets সম্পর্কে জানতে আমাদের সাথে জুড়ে থাকুন।





Source link

Leave a Reply